শিক্ষাঙ্গন 

মাাদকের স্বর্গরাজ্য হয়ে উঠছে রাবি : উদ্বিগ্ন শিক্ষার্থীরা

মাাদকের স্বর্গরাজ্য হয়ে উঠছে রাবি : উদ্বিগ্ন শিক্ষার্থীরা

তানভীর ইসলাম(রাবি প্রতিনিধি):

মতিহারের সবুজ চত্বর রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় (রাবি) দিন দিন মাদকের স্বর্গরাজ্য হয়ে উঠছে। ছাত্রদের হাতের নাগালেই চলছে রমরমা মাদক ব্যবসা। সম্প্রতি বিশ্ববিদ্যালয়ের দুইজন শিক্ষার্থীর বিষাক্ত মদপানে মৃত্যুতে মাদকের বিস্তার নিয়ে উদ্বিগ্ন হয়ে পড়েছেন শিক্ষক-শিক্ষার্থীরা।

ক্যাম্পাস সূত্রে জানা যায়, ক্যাম্পাসের নানা পয়েন্টে অবাধে চলছে মাদক সেবন। সন্ধ্যা নামলে নির্জন জায়গাগুলোতে এবং হলের কক্ষগুলোতে মাদকের আসর বসাচ্ছেন শিক্ষার্থীরা। ক্যাম্পাস ও এর আশপাশের জায়গায় মাদক সহজলভ্য হওয়ায় সহজেই শিক্ষার্থীরা এসব মাদক সেবন করতে পারছে। তাদের মাদক যোগান দিচ্ছে স্থানীয় মাদক কারবারিরা।

শিক্ষক-শিক্ষার্থীরা অভিযোগ করেন, বিশ্ববিদ্যালয় প্রক্টোরিয়াল বডি মাদক সেবন নিয়ন্ত্রণে কয়েক দফা অভিযান চালালেও তা কাজে আসছে না। পুলিশের ধরপাকড় ঠান্ডা হলে ফের সক্রিয় হয়ে ওঠে মাদক ব্যবসায়ীরা। এছাড়া হলে হলে যেসব মাদকের আসর বসছে তা সমাধানে পদক্ষেপ নিচ্ছে না হল প্রশাসন। ফলে এই সমস্যা বেড়েই চলেছে।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক এক শিক্ষার্থী বলেন, শিক্ষার্থীরা একাডেমিক,পারিবারিকসহ নানা কারণে হতাশাগ্রস্ত হয়ে মাদকের দিকে ঝুঁকছে। একে তো মাদক সহজলভ্য হয়ে গেছে, তার ওপর তাদের তদারকি করার কেউ নেই।

এ ব্যাপারে প্রগতিশীল ছাত্রজোটের আহ্বায়ক মহব্বত হোসেন মিলন বলেন, মৃত শিক্ষার্থীদের আমি ব্যক্তিগতভাবে চিনি। তবে তাদের কখনও হতাশার কথা শুনিনি। তারা হয়ত শখের বশে মদ খেতে পারে। কিন্তু তারা ভেজাল মদ খেয়ে মৃত্যুবরণ করেছে। তারা অতিরিক্ত মদ খেয়ে মারা গেছে তা আসলে বিশ্বাসযোগ্য মনে হয়না। কেননা একই দিন এক রাশিয়ান নাগরিকও ভেজাল মদ খেয়ে মারা গেছেন।

রাবি শাখা ছাত্রলীগের সহ-সভাপতি মাহফুজুর রহমান এহসান বলেন, মাদকের বিস্তার ক্যাম্পাসে যে হারে বাড়ছে তা উদ্বেগজনক। মাদক সেবনের বিরুদ্ধে সচেতন করার সঙ্গে সঙ্গে এই মাদক যেন শিক্ষার্থীদের কাছে সহজলভ্য না হয় সেজন্য পুলিশ, প্রশাসনসহ সকলকে ব্যবস্থা নিতে হবে।

প্রক্টর অধ্যাপক ড. লুৎফর রহমান বলেন, আমরা ক্যাম্পাসে মাদকের বিরুদ্ধে জিরো টলারেন্স নীতি গ্রহণ করেছি। কিন্তু যদি কেউ ক্যাম্পাসের বাহিরে মাদক সেবন করে সেটা আমাদের জানা খুব কষ্টকর। এজন্য সকলের সহযোগিতা দরকার। যাদের পরিচিতরা মাদক সেবন করছেন তারা যদি আমাদের খবর দেন তাহলে তাদের ফিরিয়ে আনতে আমরা ব্যবস্থা গ্রহণ করতে পারি। এছাড়া ক্যাম্পাসে মাদক বিক্রয় ও সেবনের বিরুদ্ধে প্রক্টরিয়াল বডি ও পুলিশ সবসময় সক্রিয় রয়েছে।

Related posts

Leave a Comment

WP2FB Auto Publish Powered By : XYZScripts.com