অপরাধ ও দুর্নীতি 

ফেসবুক হয়ে ওঠছে প্রতারণার আঁতুরঘর, সতর্ক আইন শৃঙ্খলা বাহিনী

ফেসবুক হয়ে ওঠছে প্রতারণার আঁতুরঘর, সতর্ক আইন শৃঙ্খলা বাহিনী

ফেসবুক, আপাতদৃষ্টিতে শুধু সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম হলেও কতিপয় অসাধু মানুষের বদৌলতে দিন দিন ফেসবুক হয়ে ওঠছে প্রতারণার ফাঁদ পাতার এক অন্যতম মাধ্যম। দেশের গুরুত্বপূর্ণ ব্যক্তিসহ তারকা জগতের বিভিন্ন জনপ্রিয় ব্যক্তিদের নামে ভুয়া ফেসবুক একাউন্ট ও প্রোফাইল খুলে অনেক মানুষের সাথে প্রতারণা করে আসছে কিছু কুচক্রী মহল। প্রধানমন্ত্রীসহ দেশের দায়িত্বশীলদের নামে ভুয়া আইডি খুলে ফাঁদে ফেলে অর্থ হাতিয়ে নিচ্ছে এই প্রতারকরা।

সম্প্রতি প্রধানমন্ত্রী ও তার পরিবারের সদস্যসহ সরকারের দায়িত্বশীল ব্যক্তিদের নামে একটি গ্রুপ ও ৩৬টি ভুয়া আইডি শনাক্ত করে র‌্যাব। এসব আইডি এবং গ্রুপের মাধ্যমে ভুয়া পরিচয় ব্যবহার করে পাতা হয় প্রতারণার ফাঁদ। অনেকেই এসব ফাঁদে পা দিয়ে অর্থনৈতিক ও সামাজিকভাবে ক্ষতিগ্রস্থ হয়েছেন। কাউকে দেখানো হয়েছে চাকরি পাইয়ে দেয়ার লোভ আবার কাউকে দেখানো হয়েছে চাকরিতে প্রমোশনের লোভ। এমন তথ্য পেয়ে নতুন করে নড়েচড়ে বসেছে প্রশাসন।
জানা যায়, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নামে ছয়টি ও তাঁর কন্যা সায়মা ওয়াজেদ পুতুলের নামে একটি অ্যাকাউন্ট খুলে ওমর ফারুক নামের এক ব্যক্তি। এসব আইডিতে সরকারের উন্নয়ন প্রকল্পের ছবি দিয়ে নিজের নম্বর দেন তিনি। অনেকে যোগাযোগের চেষ্টা করলে কৌশলে চ্যাটিংয়ে যায় সে। এরপর কাজের তদবিরের কথা বলে টাকা হাতিয়ে নেয়। একই কৌশলে স্পিকারসহ বিভিন্ন নেতাদের নামে ৩৬টি অ্যাকাউন্ট খোলে ফারুক। চার সহযোগীসহ গ্রেপ্তারের পর এখন ফারুককে রিমান্ডে নিয়ে জিজ্ঞাসাবাদ করছে পুলিশ।

শুধু মাত্র প্রধানমন্ত্রী কিংবা দেশের দায়িত্বশীল ব্যক্তিরাই নয়, ফেসবুকে ভুয়া আইডির শিকার শোবিজ অঙ্গনের তারকারাও। মূলত বিনোদন জগতের তারকাদের নামেই খোলা হয়েছে সব থেকে বেশি ভুয়া আইডি ও পেজ। যে তারকা যত বেশি জনপ্রিয় তার নামে রয়েছে তত বেশি ভুয়া একাউন্ট। এসব একাউন্ট দিয়েই চলছে প্রতারণার নতুন ব্যবসা।

পুলিশের সাইবার ক্রাইম তদন্তকারী সূত্র জানায়, নাট্যনির্মাতা রেদওয়ান রনির নামে ভুয়া ফেসবুক আইডি খুলে অভিনয়ের কথা বলে টাকা হাতিয়ে নিয়েছিল এক যুবক। অভিনেতা আরেফিন শুভর নামে আছে বেশ কিছু আইডি। একটি আইডি থেকে প্রতারণার অভিযোগ করেছেন ওই তারকা। একইভাবে কণ্ঠশিল্পী হাবিব ওয়াহিদ, হৃদয় খান, ইমরান, দিলশাদ নাহার কনা, নায়িকা মেহজাবিন চৌধুরী, মাহিয়া মাহি, পরীমনি, মৌসুমী, পূর্ণিমা, শাবনূর, রেসি, ববি, শাকিব খান, রিয়াজ, ফেরদৌস, বাপ্পি, ক্রিকেটার মাশরাফি বিন মর্তুজা, মেহেদী হাসান মিরাজ, মোস্তাফিজুরসহ জনপ্রিয় সব তারকার নামেই ভুয়া আইডি আছে।

এসব সাইবার ক্রাইম প্রতিরোধে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর পরিকল্পনা সম্পর্কে জানতে চাইলে সহকারী মহাপরিদর্শক (এআইজি, মিডিয়া) সোহেল রানা বলেন, ঢাকা মহানগর পুলিশের কাউন্টার টেররিজম অ্যান্ড ট্রান্সন্যাশনাল ক্রাইম (সিটিটিসি) ইউনিট, পুলিশের অপরাধ তদন্ত বিভাগের (সিআইডি) সাইবার ইউনিট, পুলিশ সদর দপ্তরের এলআইসি সেল, পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশন (পিবিআই), বিশেষ শাখা (এসবি) ও র‌্যাব সাইবার ক্রাইম নিয়ে আলাদাভাবে কাজ করছে।
এদিকে র‌্যাব ফেসবুকসহ অন্যান্য সামাজিক মাধ্যমে প্যাট্রলিংয়ের জন্য ‘সাইবার নিউজ ভেরিফিকেশন সেন্টার’ চালু করেছে। সেখানে পাওয়া তথ্যের ভিত্তিতে অভিযান চালানো হয় বলে জানান র‌্যাবের আইন ও গণমাধ্যম শাখার পরিচালক মুফতি মাহমুদ খান। তিনি বলেন, ‘অভিযোগ পেলে আমরা দ্রুত পদক্ষেপ নিচ্ছি।’

ফেসবুকের সবচেয়ে বেশি অভিযোগ সিটিটিসির সাইবার ক্রাইম ইউনিটে। গত এক বছরে এক হাজার ৬৭০টি অভিযোগ এসেছে সেখানে। দুই শতাধিক আইডির বিরুদ্ধে ২০৪ মামলার তদন্ত চলছে। অতিরিক্ত উপকমিশনার (এডিসি) নাজমুল ইসলাম বলেন, অভিযোগ পেলে নির্দিষ্ট চ্যানেলে তদন্ত হয়। ফেসবুকের সঙ্গে সরাসরি তথ্য আদান-প্রদান করেও তদন্ত চলছে বলে জানান তিনি।

গত বছর ‘সাইবার ক্রাইম অ্যাওয়ারনেস ফাউন্ডেশনের এক গবেষণায় উঠে আসে, দেশে সাইবার অপরাধের শিকার ৫১.১৩ শতাংশ নারী এবং ৪৮.৮৭ শতাংশ পুরুষ। গবেষণায় দেখা যায়, বাংলাদেশে আক্রান্ত ব্যক্তিদের মধ্যে ভুয়া আইডির মাধ্যমে হয়রানির শিকার হন ১৪.২৯ শতাংশ নারী এবং ১২.৭৮ শতাংশ পুরুষ।

তবে আইন শৃঙ্খলা বাহিনীর কার্যকরী পদক্ষেপের ফলে সাইবার ক্রাইমের পরিমাণ দ্রুতই কমে আসবে বলে প্রত্যাশা করছেন সংশ্লিষ্টরা।

Related posts

Leave a Comment

WP Facebook Auto Publish Powered By : XYZScripts.com