শিক্ষাঙ্গন 

প্রশ্ন ফাঁস ঠেকাতে বিসিএস পরীক্ষায় থাকছে নতুন তৎপরতা, অব্যাহত আছে নজরদারি

প্রশ্ন ফাঁস ঠেকাতে বিসিএস পরীক্ষায় থাকছে নতুন তৎপরতা, অব্যাহত আছে নজরদারি

নিউজ ডেস্ক: দেশের শিক্ষা ও পরীক্ষা ব্যবস্থায় শৃঙ্খলা ফিরিয়ে আনতে নানা পদক্ষেপ গ্রহণ করেছে সরকার ও শিক্ষা মন্ত্রণালয়। এর ফলে প্রশ্নপত্র ফাঁসের মতো ভয়াবহতা থেকে রক্ষা পাচ্ছে দেশের শিক্ষা ব্যবস্থা। এ নিয়ে সন্তুষ্টি প্রকাশ করছেন অভিভাবক ও শিক্ষার্থীরা। এরই ধারাবাহিকতায় মেধা নির্ভর জাতি গঠনে আগামী ৩ মে অনুষ্ঠিতব্য বিসিএস পরীক্ষাকে কেন্দ্র করে নতুন পদক্ষেপ হাতে নিয়েছে সরকার।

শিক্ষা সংশ্লিষ্টরা বলছেন, প্রতিটি বোর্ড পরীক্ষায় প্রশ্নপত্র ফাঁস রোধে সরকার যে ব্যবস্থা গ্রহণ করেছে তা নিঃসন্দেহে প্রশংসার দাবি রাখে। এরই মধ্যে সরকারের গৃহীত ব্যবস্থায় সুফল পাচ্ছে শিক্ষার্থী-অভিভাবকরা। এবার বিসিএসকে নির্বিঘ্ন-নির্ঝঞ্ঝাট করতে সরকারের এমন পদক্ষেপ সত্যিই যুগান্তকারী।

সরকারের নির্দেশ মোতাবেক ৪০তম বিসিএস পরীক্ষায় শৃঙ্খলা ফিরিয়ে আনতে শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের পাশাপাশি বিভিন্ন পদক্ষেপ গ্রহণ করেছে আইনশৃঙ্খলা বাহিনী। সরকারের সদিচ্ছা ও আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর বিশেষ উদ্যোগে এরই মধ্যে সারা দেশ থেকে প্রশ্নপত্র ফাঁস চক্রের একাধিক সদস্যদের আটক করা হয়েছে। এর ফলে ২০১৯ সালের এসএসসি পরীক্ষার প্রশ্নপত্র ফাঁস রোধে প্রায় শতভাগ সফল হয়েছে শিক্ষা মন্ত্রণালয় এবং সরকার। চলমান এইচএসসি পরীক্ষাতেও সেই ধারাবাহিকতা বজায় রাখতে তৎপর রয়েছে আইনশৃঙ্খলা বাহিনী।

সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা গেছে, ৪০তম বিসিএস পরীক্ষাকে নির্বিঘ্ন করতে পরীক্ষা চলাকালীন সময়ে কেন্দ্রের ভেতরে ও বাইরের আইনশৃঙ্খলা রক্ষার্থে প্রত্যেক কেন্দ্রে একজন করে এক্সিকিউটিভ ম্যাজিস্ট্রেটসহ পিএসসির কন্ট্রোল রুমে অতিরিক্ত আরও ১০ জন বিসিএস (প্রশাসন) ক্যাডার কর্মকর্তা দায়িত্ব পালন করবেন। পাশাপাশি এখন থেকেই বিসিএসেও প্রশ্নপত্র ফাঁসের মতো অপতৎপরতা রোধে কাজ করবে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যরা। এরই মধ্যে তারা মাঠ পর্যায়ে কাজ শুরু করেছে বলে আইনশৃঙ্খলা বাহিনী সূত্রে জানা গেছে।

বিসিএস পরীক্ষায় সার্বিক পদক্ষেপ সম্পর্কে পিএসসির একজন কর্মকর্তা বলেন, যেহেতু মেধাবীদের সঠিক মূল্যায়নই আগামী জাতি গঠনে সহায়ক হবে তাই আমরা সর্বোচ্চ চেষ্টা করছি সম্পূর্ণ প্রশ্নপত্র ফাঁস মুক্ত এবং নকল মুক্ত পরিবেশে বিসিএস পরীক্ষা আয়োজন করার। কেননা, বিসিএসে প্রতিযোগীরাই আগামীর বাংলাদেশের নেতৃত্ব দেবে। তাদের মধ্যে যদি কেউ অসদুপায় অবলম্বন করে চাকরি পায় তবে দেশ ও জাতি তার কাছ থেকে খুব বেশি উপকৃত হবে না। সুতরাং এ জায়গায় সুষ্ঠু পরিবেশ বজায় রাখা আমাদের দায়িত্ব।

Related posts

Leave a Comment

WP Facebook Auto Publish Powered By : XYZScripts.com