রাজনীতি 

নির্বাচনী গুজব ছড়াতে ব্যর্থ হওয়ায় বিলুপ্ত হয়েছে বিএনপির “বৈদেশিক সম্পর্ক কমিটি”

নির্বাচনী গুজব ছড়াতে ব্যর্থ হওয়ায় বিলুপ্ত হয়েছে বিএনপির “বৈদেশিক সম্পর্ক কমিটি”

একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনকে প্রভাবিত করতে নির্বাচনের আগে ও পরে বিএনপির শীর্ষ নেতারা বিদেশি কূটনৈতিকদের সাথে দেশ-বিদেশে একাধিক বৈঠক করেছে। যেখানে নিজেদের সমর্থকদের দিয়ে বানানো নির্বাচনী সহিংসতা ভিডিও ও ছবি বহির্বিশ্বে তুলে ধরে সরকারকে প্রভাবিত করতে ব্যর্থ হওয়ার কারণে “বৈদেশিক সম্পর্ক রক্ষায় অযোগ্যতা বিবেচনায়” বিএনপি’র বৈদেশিক সম্পর্ক বিষয়ক কমিটি বিলুপ্ত ঘোষণা করা হয়েছে।

৮০ শতাংশ ভোটারের উপস্থিতিতে সম্পন্ন হওয়া নির্বাচনে নিরঙ্কুশ বিজয়ের মধ্য দিয়ে আওয়ামী লীগ টানা তিনবারের মতো সরকার গঠন করে। যেখানে সরকারের বিরুদ্ধে কারচুপির অভিযোগ তুলে বিএনপি ও জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট। এমনকি বিদেশি কূটনীতিকদের কাছে নির্বাচনে কারচুপির বিষয়টি তুলে ধরে দল ও জোটের নেতাকর্মীরা। কিন্তু অনেক পররাষ্ট্রগুলো বিএনপির এসব অভিযোগ আমলে না নিয়ে আওয়ামী লীগ সরকারকে অভিনন্দন জানায়। আশ্বাস দেয় নতুন সরকারের সাথে কাজ করার। আর এতেই ক্ষিপ্ত হয়ে ওঠে দুর্নীতির দায়ে জেলে থাকা বিএনপির প্রধান খালেদা জিয়া এবং ভাইস চেয়ারম্যান ও জিয়াপুত্র তারেক রহমান। তাদের সিদ্ধান্ত অনুযায়ী বিএনপি’র বৈদেশিক সম্পর্ক বিষয়ক কমিটির সদস্যদের যোগ্যতা নিয়ে প্রশ্ন তুলে গত ১৭ জানুয়ারি কমিটি বিলুপ্ত করে বিএনপি।

যুদ্ধাপরাধীদের সাজা বন্ধের দাবিতে দশম জাতীয় নির্বাচন বয়কট করেছিল বিএনপি। সেবার নির্বাচনের আগে ও পরে দেশজুড়ে লাগাতার একের পর এক সশস্ত্র হামলা পরিচালনা করে বহির্বিশ্বের কাছে সন্ত্রাসী সংগঠন হিসেবে পরিচিত পায়। সেই থেকেই পাকিস্তান, যুক্তরাজ্য ও যুক্তরাষ্ট্র ছাড়া বাকি দেশগুলোর সাথে কূটনৈতিক সম্পর্কের ক্ষেত্রে টানাপোড়ন চলছে দলটির।

দলীয় সাংগঠনিক ক্ষমতা কমে আসায় ও দলীয় নিবন্ধন বাঁচাতে গণফোরামের প্রধান ড. কামাল হোসেনের নেতৃত্বে প্রায় দশ বছর পর একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে অংশ নিয়েছিল বিএনপি। নির্বাচনে ৩০০ আসনের বিপরীতে জয় পায় মাত্র ৫ টি আসনে। ফলে প্রায় একযুগ ধরে মনের মধ্যে পুষে রাখা নির্বাচন জয়ের স্বপ্ন ভঙ্গ হয়।

সূত্র জানায়, ক্ষমতা দখলের উদ্দেশ্যে পাকিস্তানি গোয়েন্দা সংস্থা আইএসআই এর সাথে মিলে দেশজুড়ে হামলার ছক আঁকে বিএনপি। তাদের পরিকল্পনার অংশ হিসেবে ছিল, নিজেরাই দেশের বিভিন্ন স্থানে ধারাবাহিক হামলা করে সেটার ভিডিও ও ছবি সংগ্রহ করে সেটা সরকারের নামে বলে দেশে ও বিশেষ করে বিদেশে প্রচার করে বিদেশি চাপ সরকারের ওপর বাড়ানোর একটি সুক্ষ পরিকল্পনা ছিল।

Related posts

Leave a Comment

WP Facebook Auto Publish Powered By : XYZScripts.com