রাজনীতি 

ঘন ঘন অগ্নিকাণ্ড নিয়ে ঘৃণ্য রাজনীতি করতে পারে বিএনপি, বিশেষজ্ঞদের শঙ্কা

ঘন ঘন অগ্নিকাণ্ড নিয়ে ঘৃণ্য রাজনীতি করতে পারে বিএনপি, বিশেষজ্ঞদের শঙ্কা

নিউজ ডেস্ক : গত আড়াই মাসে রাজধানীতে তিনটি গুরুত্বপূর্ণ জায়গায় অগ্নিকাণ্ডের ঘটনায় নাশকতার সন্দেহ করছেন রাজনীতি সচেতনরা। অনেকেই বলছেন, ভোট ও রাজপথের রাজনীতিতে পরাজিত একটি রাজনৈতিক দুষ্ট চক্র সাধারণ মানুষের মৃত্যুকে পুঁজি করে গণ-অসন্তোষ সৃষ্টির মাধ্যমে ক্ষমতা দখলের পায়তারা করছে।

ক্ষমতায় বসতে নিরীহ মানুষের জান-মালকে ঢাল হিসেবে ব্যবহার করছে তারা। ষড়যন্ত্রের এই রাজনীতি থেকে বাঁচতে তাই ক্ষমতাসীনদের সচেতন হওয়ারও পরামর্শ দিয়েছেন তারা।

সাম্প্রতিক অগ্নিকাণ্ডের ঘটনাগুলোকে সন্দেহজনক এবং কৃত্রিম সংকট তৈরির মাধ্যম মনে করছেন স্থানীয় সরকার বিশেষজ্ঞ ও রাজনৈতিক বিশ্লেষক ড. তোফায়েল আহমেদ। তিনি বলেন, অতি সম্প্রতি ঘটে যাওয়া অগ্নিকাণ্ডের ঘটনাগুলো আমাকে বেশ ভাবিয়েছে। জাতীয় নির্বাচনে একটি দলের শোচনীয় পরাজয় ও উপজেলা নির্বাচন বর্জন করার পর থেকেই কিন্তু বিভিন্ন জায়গায় অগ্নিকাণ্ডের ঘটনা বেড়েই চলেছে। আমার কাছে এটি প্রতিশোধমূলক রাজনীতির চরম পর্যায় মনে হচ্ছে। কারণ বনানীর এফ আর টাওয়ারের অবৈধ অংশের মালিক নাকি বিএনপি নেতা। তার সঙ্গে মালিক পক্ষের বিরোধ ছিল। সেই বিএনপি নেতা তাসভির নাকি বিল্ডিংয়ের মালিককে দেখে নেয়ারও হুমকি দিয়েছিলেন।

তিনি আরো বলেন, ব্যবসায়ীদের হাত করে একটি এমন করতেও পারে। কারণ রাজনৈতিক উদ্দেশ্য হাসিল করতে যে দল পেট্রোল বোমা, আগুন সন্ত্রাসের নামে মানুষ হত্যা করে তারা নতুন করে আগুন সন্ত্রাসেও নামতে দ্বিধাবোধ করবে না।

সাম্প্রতিক অগ্নিকাণ্ডের ঘটনাগুলোকে জাতীয় স্থিতিশীলতা ও উন্নয়নের অন্তরায় দাবি করে নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক একজন রাজনৈতিক বিশ্লেষক বলেন, অগ্নিকাণ্ডগুলোর ঘটনায় রাজনৈতিক কোন যোগসূত্র রয়েছে কিনা তা খতিয়ে দেখা উচিত। রাজনীতিতে পরাজিত শক্তি অবৈধভাবে ক্ষমতায় বসতে সব করতে পারে। তারা শুধু ক্ষমতা বোঝে, তাদের কাছে মানুষের জান-মালের কোন দাম নেই। রাজপথ ও নির্বাচনে পরাজিত শক্তি দেশকে অস্থিতিশীল করে নিজেদের ফায়দা লুটতে দেশব্যাপী বিশৃঙ্খলা সৃষ্টির পায়তারায় নেমেছে। এসব দেশ বিরোধী, গণ-মানুষের শত্রুদের অপকর্মের বিরুদ্ধে সকলকে সচেতন হতে হবে।

Related posts

Leave a Comment

WP2FB Auto Publish Powered By : XYZScripts.com